1. sparkleit.bd@gmail.com : K. A. Rahim Sablu : K. A. Rahim Sablu
  2. diponnews76@gmail.com : Debabrata Dipon : Debabrata Dipon
  3. admin@banglanews24ny.com : Mahmudur : Mahmudur Rahman
  4. mahmudbx@gmail.com : Monwar Chaudhury : Monwar Chaudhury
করোনাকালীন সময়েও থেমে নেই শাহবাজপুরের মডেল কিন্ডারগার্টেন স্কুল
বৃহস্পতিবার, ১৮ অগাস্ট ২০২২, ০৮:১৮ অপরাহ্ন




করোনাকালীন সময়েও থেমে নেই শাহবাজপুরের মডেল কিন্ডারগার্টেন স্কুল

মনিরুল ইসলাম,জুড়ী
    আপডেট : ০৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ২:০২:৫২ অপরাহ্ন

করোনায় পুরো পৃথিবী এখন থমকে গেছে। বাংলাদেশ সহ পুরো পৃথিবীর শিক্ষা ব্যবস্থায় স্থবিরতা বিরাজ করছে।করুণা ভাইরাসের প্রথম থেকেই দেশের সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে।
মৌলভীবাজার জেলার বড়লেখা উপজেলার শাহবাজপুর মডেল কিন্ডারগার্টেন স্কুলের শিক্ষকরা করোনাকালীন সময় থেমে নেই।শাহবাজপুরের শিশু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মডেল কিন্ডারগার্টেন স্কুল দীর্ঘ করোনা ভাইরাসজনিত মহামারীতে পাঠদান কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে। শিশুদের যাতে লেখাপড়ার কোনো ক্ষতি না হয় সেটা বিবেচনায় রেখে ‘আমার ঘর এখন আমার স্কুল’ এই স্লোগান নিয়ে স্বাস্থ্যবিধি ও নিরাপদ দূরত্ব মেনে প্রতিদিন রুটিনমাফিক ১০ জন শিক্ষক সকাল ১০টা থেকে দুপুর ২ঃ৩০ মিনিট পর্যন্ত বাড়ি বাড়ি গিয়ে শিক্ষার্থীদের পাঠদান কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন। বাড়ি বাড়ি গিয়ে শিক্ষার্থীদের সংক্ষিপ্ত সিলেবাস, সাজেশন, হ্যান্ডনোট বিতরণ করছেন। এমনকি হোমটেস্ট পরীক্ষা নিয়ে শিক্ষার্থীদের ব্যস্ত রাখতেছেন।

প্রথমদিকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম হোয়াটসঅ্যাপ, ইমো ও মেসেঞ্জারে শিক্ষার্থীদের বাড়ীর কাজ দেন। পরবর্তীতে ZOOM অ্যাপসের মাধ্যমে অনলাইন ক্লাস নেন। সপ্তাহে ২/৩ দিন প্রত্যেক শিক্ষার্থীদের মোবাইলে লেখাপড়ার খোঁজ-খবর নেন।এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের এরকম কার্যক্রমকে অভিভাকরা সাধুবাদ জানিয়েছেন।

অভিভাবক সদস্য মুজিব রাজা চৌধুরী বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের প্রসংশা করে বলেন, এটা প্রশংসনীয় উদ্যোগ। ইউনিয়ন পর্যায়ের এই কেজি স্কুল দেখিয়ে দিল যেকোনো পরিস্থিতিকে কিভাবে মোকাবিলা করতে হয়।
অন্য আরো একজন অভিভাবক সদস্য এম. জুবের আহমদ বলেন, শিক্ষকদের অক্লান্ত পরিশ্রমে আমাদের সন্তানদের ক্ষতি পুষিয়ে নেওয়া সম্ভব হচ্ছে। এছাড়া অভিভাবক সদস্য নজরুল ইসলাম চুনু ও মোঃ তাজ উদ্দিন প্রধান শিক্ষকের ভুয়সী প্রশংসা করেন।
বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রুহেল আহমদ বলেন, আমার একার পক্ষে এই কাজ করা সম্ভব নয়। সম্মানিত অভিভাবকমণ্ডলীর সার্বিক সহযোগিতা ও আমার সহকারী শিক্ষকমণ্ডলীর অক্লান্ত পরিশ্রমে কিছুটা হলেও শিক্ষার্থীদের পাঠে মনযোগী করতে পেরেছি। ইউনিয়নের অনেক এলাকা দুর্গম এবং নেটওয়ার্ক সুবিধা না থাকায় সকল শিক্ষার্থীকে অনলাইন ক্লাসে অংশগ্রহণ করাতে না পারলেও বাড়ি বাড়ি সরাসরি ক্লাস শুরু করায় শতভাগ শিক্ষার্থীদের ক্লাস নিতে সক্ষম হয়েছি।




খবরটি এখনই ছড়িয়ে দিন

এই বিভাগের আরো সংবাদ







Copyright © Bangla News 24 NY. 2020