1. sparkleit.bd@gmail.com : K. A. Rahim Sablu : K. A. Rahim Sablu
  2. diponnews76@gmail.com : Debabrata Dipon : Debabrata Dipon
  3. admin@banglanews24ny.com : Mahmudur : Mahmudur Rahman
  4. mahmudbx@gmail.com : Monwar Chaudhury : Monwar Chaudhury
কুলাউড়ায় গলায় ওড়না পেঁচানো কিশোরীর মরদেহ উদ্ধার
সোমবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২২, ০৫:০০ পূর্বাহ্ন




কুলাউড়ায় গলায় ওড়না পেঁচানো কিশোরীর মরদেহ উদ্ধার

কুলাউড়া (মৌলভীবাজার) প্রতিনিধি
    আপডেট : ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ৯:০৬:১২ পূর্বাহ্ন

মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় বাড়ির পাশে ওড়না পেঁচানো অবস্থায় মাটিতে ফেলে রাখা পপি সরকার (১২) নামে এক কিশোরীর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার (২৭ সেপ্টেম্বর) দুপুরে পুলিশ উপজেলার পৃথিমপাশার সুলতানপুর গ্রামে একটি বাড়ির পাশ থেকে পপির লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

পপির বাবা দিগেন্দ্র সরকার ও মা আশুলতার দাবি ১৫ দিন আগে তাঁদের মেয়েকে ধর্ষণ করে স্থানীয় বাসিন্দা সুরমান মিয়া (২৫)। পরবর্তীতে এ ঘটনা ধামাচাপা দিতে ফের ধর্ষণ করে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে।

পপি হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার করগাঁও ইউনিয়নের গুমগুমিয়া গ্রামের দিগন্দ্র সরকারের বড় মেয়ে। দিগেন্দ্র ৪ মাস ধরে উপেজেলার সুলতানপুর গ্রামের স্থানীয় বাসিন্দা ও সাবেক শিক্ষক কামাল হোসেন চৌধুরীর বাড়িতে পরিবার নিয়ে ভাড়া থাকেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সোমবার (২৬ সেপ্টেম্বর) রাত ১২টার দিকে পপি মায়ের সাথে ঘুমাতে যান। সাড়ে তিনটার দিকে আশুলতা ঘুম থেকে ওঠে দেখেন তাঁর মেয়ে ঘরে নেই। এ সময় আশুলতা ও দিগেন্দ্র ঘরের জানালা খোলা এবং জানালার ওপর বিস্কুট ঝুলানো রয়েছে দেখতে পান।

অনেক খোঁজাখুজি করার পর মঙ্গলবার (২৭ সেপ্টেম্বর) সকাল ৯টার দিকে তাঁদের ঘরের পিছনে একটু অদূরে গলায় ওড়না পেঁচানো ও মাটিতে উপুড় অবস্থায় পপির দেহ দেখতে পান। এ সময় পপির নাক ও মুখ দিয়ে রক্ত বের হচ্ছিলো।

খবর পেয়ে দুপুরে কুলাউড়া থানার উপ পরিদর্শক মো. হারুনুর রশীদ ঘটনাস্থল থেকে লাশটি উদ্ধার করে নিয়ে যান।

নিহতের বাবা দিগেন্দ্র সরকার জানান, প্রায় ১৫ দিন আগে তার মেয়ে পপি সরকারকে আইসক্রিমের লোভ দেখিয়ে ধর্ষণ করেন ওই এলাকার বাসিন্দা আইসক্রিম বিক্রেতা সুরমান মিয়া। সুরমান স্থানীয় ইউপি সদস্য কিবরিয়া হোসেন খোকনের আইসক্রীম ফ্যাক্টরীতে চাকরি করে।

দিগ্রেন্দ্র বলেন, আমি বিষয়টি থানায় অভিযোগ করতে চাইলে পৃথিমপাশা ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আব্দুল মতিন ও ১ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য কিবরিয়া হোসেন খোকন জোরপূর্বক বাড়ির মালিক (দিগেন্দ্র যে বাড়িতে ভাড়া থাকেন) কামাল হোসেন চৌধুরীর রবির বাজারের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে শালিসী বৈঠক করে বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা করেন।

তিনি বলেন, বৈঠকে সুরমানের পক্ষ থেকে ১০ হাজার টাকা আমাকে দেওয়ার সিদ্বান্ত নেয়া হয় এবং বিষয়টি নিষ্পত্তি হয়েছে এই মর্মে সাদা কাগজে আমাকে টিপসই দেওয়ার জন্য বলেন ওই দুই ইউপি সদস্য। আমি বিষয়টি মানিনি। থানায় অভিযোগ করার চেষ্টা করি। তখন আমাকে এবং আমার স্ত্রীকে ভয়ভীতি দেখান সুরমান ও কাজল । এর জেরে সোমবার রাতে বিস্কুটের লোভ দেখিয়ে সুরমান ও কাজল আমার মেয়েকে ঘর থেকে বের করে নিয়ে যায়। পরে আমার মেয়েকে ধর্ষণ করে হত্যা করে ফেলে রেখে যায় অভিযোগ করেন দিগ্রেন্দ্র।

২ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য আব্দুল মতিনের মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি বৈঠকের বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, ‘ধর্ষণের ঘটনায় কোন শালিসী বৈঠক করা যায় না। আমি কোন বৈঠকে ছিলাম না।’

তবে ১নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য কিবরিয়া হোসেন খোকন বলেন, ‘ধর্ষণের ঘটনা সত্য নয়। দিগেন্দ্রর মেয়ে পপি মানসিক রোগী। সুরমান ওই এলাকায় আইসক্রীম বিক্রি করতে গেলে পপি তাঁর কাছে আইসক্রীম চায়। সুরমান দেয়নি। এজন্য পপির মা ও বাবা মিলে সুরমানকে মারধর করে। বিষয়টি নিয়ে বাড়ির মালিক কামাল চৌধুরীর দোকানে স্থানীয় মেম্বার আব্দুল মতিনসহ আমরা পপির মা বাবাকে নিয়ে বৈঠক করি।’

কুলাউড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আব্দুছ ছালেক বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে এটি হত্যাকান্ড। থানায় পপির পিতা বাদি হয়ে সুরমান ও কাজলকে অভিযুক্ত করে থানায় মামলা করেছেন। ময়নাতদন্তে বিষয়টি স্পষ্ট হওয়া যাবে।

ধর্ষণের ঘটনায় শালিসী বৈঠকের বিষয়ে জানতে চাইলে ওসি বলেন, এ বিষয়ে তদন্ত করে দেখবো কি ঘটেছিলো ওই বৈঠকে।’




খবরটি এখনই ছড়িয়ে দিন

এই বিভাগের আরো সংবাদ







Copyright © Bangla News 24 NY. 2020