1. sparkleit.bd@gmail.com : K. A. Rahim Sablu : K. A. Rahim Sablu
  2. diponnews76@gmail.com : Debabrata Dipon : Debabrata Dipon
  3. admin@banglanews24ny.com : Mahmudur : Mahmudur Rahman
  4. mahmudbx@gmail.com : Monwar Chaudhury : Monwar Chaudhury
নগরীর বিপর্যস্ত সড়ক সংস্কারে প্রয়োজন ৪শ’ কোটি টাকা
বৃহস্পতিবার, ১১ অগাস্ট ২০২২, ০৬:০৪ অপরাহ্ন




নগরীর বিপর্যস্ত সড়ক সংস্কারে প্রয়োজন ৪শ’ কোটি টাকা

স্টাফ রিপোর্ট::
    আপডেট : ২৫ জুলাই ২০২২, ৭:৪১:৪৩ পূর্বাহ্ন

টানা তিনদফা বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত সিলেট নগরীর রাস্তা সংস্কারে প্রায় চারশো কোটি টাকা প্রয়োজন বলে দাবি করছে সিটি করপোরেশন। সিটি করপোরেশনের প্রকৌশল শাখা বলছে নগরির সাবেক ২৭টি ওয়ার্ডের পাশাপাশি নতুনভাবে অন্তর্ভুক্ত ১৫টি ওয়ার্ড মিলিয়ে সর্বমোট ৪২টি ওয়ার্ড রয়েছে। ৪২টি ওয়ার্ডে সিটি করপোরেশনের ৯৯০ কিলোমিটার সড়ক রয়েছে। কিন্তু বন্যার পানিতে এসব ওয়ার্ডের মোট ১২৭ কিলোমিটার সড়ক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। আর এসব সড়ক সংস্কারে সিটি করপোরেশনের প্রয়োজন পড়বে মোট ৪০০ কোটি টাকা।

নগরীর রাস্তাঘাট পরিদর্শনকালে দেখা গেছে অধিকাংশ রাস্তার পিচ-খোয়া উঠে স্থানে স্থানে তৈরি হয়েছে খানাখন্দ। সৃষ্টি হওয়া ছোট-বড় গর্তের কারণে ধীরগতিতে চলছে যানবাহন। ফলে ঘন্টার পর ঘন্টা তৈরি হচ্ছে যানজট।

রবিবার বেলা ১১ টায় নগরীর সোবহানীঘাট এলাকায় যানজট ছিল প্রায় দুইঘন্টাব্যাপী। সোবহানীঘাট এলাকা ছাড়াও সরেজমিনে দেখা গেছে, নগরের পুলিশ লাইনস, মীরের ময়দান, ইলেকট্রিক সাপ্লাই, শামীমাবাদ, পাঠানটুলা, মদিনা মার্কেট, মীরাবাজার, উপশহর, যতরপুর ও কালীঘাট এলাকার সড়ক ভাঙাচোরা অবস্থায় রয়েছে। স্থানীয় লোকজন বলেছেন, বন্যার পানি নামার পর সড়কগুলোর ক্ষত বেরিয়ে এসেছে। এসব এলাকা দিয়ে চলাচলে মানুষদের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

নগরীর উপশহর এলাকার এনজিও কর্মী সুয়েব আহমদ বলেন, গত ১৫ জুন সিলেট নগরে বন্যা দেখা দিয়েছিল। তবে বন্যার পানি কয়েক সপ্তাহ আগে নেমে গেলেও ভাঙাচোরা সড়ক মেরামতে সিটি করপোরেশন কোনো ধরনের উদ্যোগ নেয়নি। ফলে প্রতিদিন চলাফেরা করতে গিয়ে নগরবাসীকে দুর্ভোগের মুখোমুখি হতে হচ্ছে। এ ছাড়া ভাঙাচোরা সড়কে যান চলাচল করায় সড়কগুলো আরও বেহাল হয়ে পড়ছে। দ্রæত সড়কের খানাখন্দ সংস্কার এবং বিধ্বস্ত সড়ক পুর্ন নির্মাণ কাজ শুরু করা উচিত বলে মনে করছেন তিনি।

স্থানীয় কয়েকজন বাসিন্দা বলেন, নগরের বন্যাকবলিত বেশির ভাগ এলাকার সড়ক বিধ্বস্ত হয়েছে। যেসব সড়ক বন্যা শুরু হওয়ার আগে ভাঙাচোরা ছিল, সেসব সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। খানাখন্দময় সড়কে ব্যক্তিগত গাড়ি, অটোরিকশাসহ শত শত যানবাহন চলে থেমে থেমে। সামান্য বৃষ্টি হলেই সড়কের খানাখন্দে পানি জমে যানবাহন চলাচলের সময় ছিটকে পড়ে। এতে পথচারীদের কাপড় নোংরা হচ্ছে।

ভাঙাচোরা সড়কের আশপাশের বাসিন্দা ও কয়েকজন ব্যবসায়ীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বন্যার পানিতে সড়কের বিটুমিন-কার্পেটিং উঠে যাওয়ায় মানুষের দুর্ভোগের শেষ নেই। এসব সড়কে বিশেষত রাতের বেলায় প্রায়ই ছোট-বড় দুর্ঘটনাও ঘটছে।

সিটি করপোরেশনের প্রধান প্রকৌশলী নূর আজিজুর রহমান বলেন, নগরের কোন কোন এলাকায় বন্যায় সড়ক বিধ্বস্ত হয়েছে, এর জরিপকাজ এরই মধ্যে শেষ হয়েছে। ভাঙাচোরা সড়ক সংস্কার বা পুনর্র্নিমাণে কত টাকা ব্যয় হবে, তাও নির্ধারণ করা হয়েছে। টাকা পাওয়া গেলেই জরুরি ভিত্তিতে সব সড়ক মেরামতে উদ্যোগ নেওয়া হবে।




খবরটি এখনই ছড়িয়ে দিন

এই বিভাগের আরো সংবাদ







Copyright © Bangla News 24 NY. 2020