1. sparkleit.bd@gmail.com : K. A. Rahim Sablu : K. A. Rahim Sablu
  2. diponnews76@gmail.com : Debabrata Dipon : Debabrata Dipon
  3. admin@banglanews24ny.com : Mahmudur : Mahmudur Rahman
  4. mahmudbx@gmail.com : Monwar Chaudhury : Monwar Chaudhury
ভারতে স্বদেশি নারীকে গণধর্ষণের অভিযোগে বাংলাদেশির সাজা
সোমবার, ০৪ জুলাই ২০২২, ০৩:২৪ পূর্বাহ্ন




ভারতে স্বদেশি নারীকে গণধর্ষণের অভিযোগে বাংলাদেশির সাজা

বাংলানিউজ২৪এনওয়াই ডেস্ক
    আপডেট : ২১ মে ২০২২, ২:০৯:১৭ অপরাহ্ন

ভারতের বেঙ্গালুরুতে ২২ বছর বয়সী এক বাংলাদেশি নারীকে গণধর্ষণ, অত্যাচার ও সেই ঘটনার ভিডিও ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে তা ছড়িয়ে দেয়ার অপরাধে ১১ জনকে দোষী সাব্যস্ত করেছে বেঙ্গালুরুর একটি স্থানীয় আদালত।

গত বছরের মে মাসের ওই ঘটনার তদন্তে নেমে শুক্রবার আদালত অভিযুক্ত তিন নারী সহ ওই ১১ জনকে দোষী সাব্যস্ত করে এবং শাস্তি হিসাবে সর্বোচ্চ জাবজ্জীবন থেকে নয় মাসের কারাগারের সাজার আদেশ দেন বেঙ্গালুরুর অতিরিক্ত সিটি সিভিল অ্যান্ড সেশন আদালতের বিচারক এন. সুব্রামন্যা।

দোষী সাব্যস্ত চাঁদ মিয়া ওরফে সবুজ, মহম্মদ রফিকাদুল ইসলাম ওরফে হৃদয় বাবু, মহম্মদ আলামিন হোসেন ওরফে রফসান মণ্ডল, রাকিবুল ইসলাম ওরফে সাগর, ম হম্মদ বাবু শেখ, মহম্মদ ডালিম ও আজিম হোসেনকে যাবজ্জীবন কারাগারের সাজা দেয়। তাদের সহযোগী তানিয়া খান’কে ২০ বছরের কারাগারের সাজা শোনায় আদালত। এই গ্যাংয়ের সদস্যদের সমর্থনের অভিযোগে এবং অবৈধ ভাবে বসবাসের অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত মহম্মদ জামালকে ৫ বছরের কারাগারের সাজা দেয়া হয়। সবকিছু জানা সত্ত্বেও অপরাধ স্বীকার না করার কারণে অন্য দুই নারী- নুসরত ও কাজল- প্রত্যেকেই ৯ মাসের করে কারাগারের সাজা দেয়া হয়।

ন্যাক্কারজনক ঘটনাটি ঘটে কর্নাটক রাজ্যের রামামূর্তি নগর পুলিশ থানার অধীন কনক নগর এলাকায়। গত ২০২১ সালের ১৮ মে নির্যাতনের ওই ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। সেখানে দেখা যায় একজন নারীকে নির্যাতন করছে চারজন পুরুষ। বিষয়টি ভারতের পাশাপাশি বাংলাদেশেও যথেষ্ট আলোড়ন তোলে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হয়, আক্রান্ত ওই নারী উত্তরপূর্ব ভারতের কোনো রাজ্যের বাসিন্দা। স্বাভাবিকভাবেই আসাম পুলিশের পক্ষ থেকে আক্রান্ত ও অভিযুক্তদের ছবি দিয়ে টুইট করার পাশাপাশি তাদের সন্ধান দিলে পুরস্কারও ঘোষণা করা হয়।

এরপর তদন্তের জন্য বিশেষ তদন্তকারী দল গঠন করা হয়। অভিযুক্তদের খোঁজে বেঙ্গালুরু সহ সংলগ্ন রাজ্যগুলিতেও অভিযান চালায় বেঙ্গালুরু পুলিশ। তদন্তে নেমে ওই ঘটনায় জড়িত থাকার অপরাধে মোট ১২ জনকে আটক করা হয়। এর মধ্যে ১১ জনই বাংলাদেশি নাগরিক তারা সবাই অবৈধভাবে ভারতে প্রবেশ করে এবং বেঙ্গালুরুতেই বসবাস করছিল। বাকিজন বেঙ্গালুরুর বাসিন্দা।

কাজের লোভ দেখিয়ে ওই বাংলাদেশি নারীকে পাচার করে প্রথমে বেঙ্গালুরুতে নিয়ে আসা হয়। যদিও নিজের বুদ্ধির জোরে ওই দলের হাত থেকে পালিয়ে কেরলে চলে যায় সে। কিন্তু দলের সদস্যরা ওই নারীর পিছু ধাওয়া করে তাকে ফের কেরল থেকে বেঙ্গালুরুতে নিয়ে আসে। তারপর এই সংঘবদ্ধভাবে ধর্ষণ ও নির্যাতনের অভিযোগে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধিতে মামলা দায়ের করা হয়।




খবরটি এখনই ছড়িয়ে দিন

এই বিভাগের আরো সংবাদ







Copyright © Bangla News 24 NY. 2020