1. sparkleit.bd@gmail.com : K. A. Rahim Sablu : K. A. Rahim Sablu
  2. diponnews76@gmail.com : Debabrata Dipon : Debabrata Dipon
  3. admin@banglanews24ny.com : Mahmudur : Mahmudur Rahman
  4. mahmudbx@gmail.com : Monwar Chaudhury : Monwar Chaudhury
শাল্লায় ধর্ষণ মামলার আসামীরা রুমেনের নির্বাচনী প্রচারণায়!
রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ০৪:৫৪ পূর্বাহ্ন




শাল্লায় ধর্ষণ মামলার আসামীরা রুমেনের নির্বাচনী প্রচারণায়!

স্টাফ রিপোর্টার, সুনামগঞ্জ :
    আপডেট : ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২, ৮:৩০:৫৬ অপরাহ্ন

জেলা পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ক্রমেই উত্তপ্ত হয়ে উঠছে সুনামগঞ্জের রাজনীতি। এরই মধ্যে অব্যাহতি/বহিস্কার নাটকও মঞ্চস্থ হয়েছে সুনামগঞ্জে। যদিও কেন্দ্র থেকে দলীয় পদ থেকে বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী নুরুল হুদা মুকুটের ব্যাপারে কোনো নিদের্শনা এখনো আসেনি। তবে অভিযোগ রয়েছে, মুকুটের তুমুল জনপ্রিয়তায় ধরাশায়ী আওয়ামী লীগ প্রার্থী ও জেলা সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এনামুল কবির ইমনের ভাই অ্যাড. খায়রুল কবির রুমেন। এরই অংশ হিসেবে মুকুটের বিজয় বানচাল করতে যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটিতেও অভিযোগ জানিয়েছে সুনামগঞ্জ আওয়ামী লীগ। এরই প্রেক্ষিতে দলের সিনিয়র সহ-সভাপতি বিদ্রোহী প্রার্থী নুরুল হুদা মুকুটের ভাই জেলা যুবলীগের আহবায়ক খায়রুল হুদা চপলকে নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

জানাগেছে, দুইপক্ষের নেতা কর্মীরা নির্বাচনকে নিজেদের ‘অস্তিত্বের লড়াই’ হিসাবে দেখছে। খায়রুল কবির রুমেনের পক্ষে তাঁর ভাই জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার এম এনামুল কবির ইমন প্রচারণা শুরু করেছেন। বৃহস্পতিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) বৃহস্পতিবার (২৯ সেপ্টেম্বর) সুনামগঞ্জের শাল্লায় প্রচারণাকালে ধর্ষণ আসামীদের নিয়েও ভাইয়ের পক্ষে জনসংযোগ করেন সাধারণ সম্পাদক ব্যারিষ্টার এনামুল কবির সাথে ইমন। ওইদিন কিশোরি ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি ইউপি চেয়ারম্যান বিশ্বজিৎ চৌধুরী নান্টু বিনা জামিনে পুলিশ প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে রাজনৈতিক প্রভাবে ব্যারিষ্টার এনামুল কবির ইমনের সাথে উপজেলা সদরের বিভিন্ন স্থানে প্রকাশ্যে রুমেনের পক্ষে দিনব্যাপী প্রচারণা চালিয়েছেন। পরে শুক্রবার (৩০ সেপ্টেম্বর) সুনামগঞ্জ জেলা সদর থেকে অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ আমিনুল ইসলামসহ একটি ফোর্স তাদেরকে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হন। ধর্ষণ মামলার দু’জন আসামিকে গ্রেপ্তারের বিষয়টি এই প্রতিবেদককে নিশ্চিত করেছেন শাল্লা থানা অফিসার ইনচার্জ ওসি মোঃ আমিনুল ইসলাম।

এই ঘটনায় দলের ত্যাগী নেতাকর্মীদের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে। তাদের দাবি- প্রচারণা কালেই তাদের চরিত্র প্রকাশ হচ্ছে।

জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি রেজাউল করিম শামীম বললেন, মুকুট দলের দুঃসময়ের কর্মী। ভুল তথ্য পেয়ে দলের স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ড দলীয় প্রার্থী করেন নি তাঁকে। দলের কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের কাছে গ্রহণযোগ্যতা না থাকলে বিগত জেলা পরিষদ নির্বাচনের পর মুকুটকে সংগঠনের জেলা কমিটির জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি করা হতো না। এবারও মুকুট জয়ী হবেন। অন্যায়ের বিরুদ্ধে কর্মীরা আরও বেশি সুসংগঠিত হয়েছে।

জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শংকর দাস বলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সম্পাদকের অগঠনতান্ত্রিক আচরণের বিরুদ্ধে নেতা কর্মীরা আরও বেশি সোচ্চার হয়েছেন। জামালগঞ্জে বুধবার চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্যরা সভা করেছেন। তাঁরা সকলেই নুরুল হুদা মুকুটকে সমর্থন দিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, সোমবার দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে জেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী হওয়ায় নুরুল হুদা মুকুটকে দলীয় সকল পদ থেকে অব্যাহতি দিয়ে চিঠি পাঠিয়েছিলেন জেলা সভাপতি মতিউর ও সম্পাদক ইমন। মঙ্গলবার সংবাদ সম্মেলন করে মুকুট সভাপতি ও সম্পাদকের বিরদ্ধে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগ আনেন। বিগত সময়ে স্থানীয় সরকার নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীর বিরুদ্ধে অবস্থান নেওয়ায় মতিউর ও ইমন দুজনকেই অব্যাহতি দেবার দাবিও জানান তিনি।




খবরটি এখনই ছড়িয়ে দিন

এই বিভাগের আরো সংবাদ







Copyright © Bangla News 24 NY. 2020