1. sparkleit.bd@gmail.com : K. A. Rahim Sablu : K. A. Rahim Sablu
  2. diponnews76@gmail.com : Debabrata Dipon : Debabrata Dipon
  3. admin@banglanews24ny.com : Mahmudur : Mahmudur Rahman
  4. mahmudbx@gmail.com : Monwar Chaudhury : Monwar Chaudhury
সিলেটে ব্যাপক প্রস্তুতি: দেবী আসছেন গজে,যাবেন নৌকায়
রবিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২২, ০৪:০৯ পূর্বাহ্ন




সিলেটে ব্যাপক প্রস্তুতি: দেবী আসছেন গজে,যাবেন নৌকায়

নীরব চাকলাদার
    আপডেট : ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২, ১:৩২:১৯ অপরাহ্ন

ধরাতে এবার মা দুর্গা আসছেন গজে। তিনি ফিরবেন নৌকায় চড়ে। প্রচলিত বিশ্বাস অনুযায়ী দুর্গার গমাগমণের বিষয়ের উপর নির্ভর করে সারা বছর কেমন যাবে! শাস্ত্র অনুসারে বলা হয়, সিংহবাহিনী দেবী দুর্গা গজ বা হাতি অথবা ঘোটক বা ঘোড়া এই দু’প্রকার বাহন কিংবা নৌকা অথবা দোলা এই দু’প্রকার যানেই আগমন এবং গমন করেন।

শাস্ত্র অনুযায়ী গজ অর্থাৎ হস্তী বা হাতি সমৃদ্ধির প্রতীক। অর্থাৎ এবার দেবীর গজে আগমন বা গমন মানে পৃথিবী শস্যপূর্ণ হয়ে উঠবে, যা শুভ ফল নির্দেশ করে। আর নৌকা হলো সমৃদ্ধির প্রতীক। অর্থাৎ, দেবীর নৌকায় আগমন বা গমন হলে, পৃথিবীতে বৃষ্টিপাত বেশি হবে, নদীনালা জলপূর্ণ হবে এবং শস্যপূর্ণ হয়ে উঠবে, যা শুভ ফল নির্দেশ করে।
সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সর্ববৃহৎ উৎসব দুর্গা পূজা। সারাবছর এই সম্প্রদায়ের লোক মায়ের আগমণে ব্যকুল থাকেন প্রতিক্ষায়। আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর শুক্রবার মহাপঞ্চমীর মধ্যে দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হচ্ছে মায়ের আরাধনা। এর আগে ২৫ সেপ্টেম্বর রবিবার অনুষ্ঠিত হবে পবিত্র মহালয়া। আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর শুক্রবার মহাপঞ্চমী, ১ অক্টোবর শনিবার মহাষষ্ঠী ও ৫ অক্টোবর (বুধবার) বিজয়া দশমী।

শারদ উৎসবকে সামনে রেখে সারাদেশের মতো উৎসবমুখর সিলেট। প্রতিটি মন্ডবে চলছে প্রতিমা গড়ার কাজ। মোট কথা দম ফেলার ফুসরৎ নেই শিল্পীদের। ঢাক, ঢোল, শঙ্খধ্বনি আর উলুধ্বনি দিয়ে দেবী দুর্গাকে বরণ করে নেওয়ার অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন মায়ের ভক্তরা। সিলেটে এবার ৬০৬টি মÐপে পূজা আয়োজিত হবে। তার মধ্যে সার্বজনীন ৫৫৭টি, পারিবারিক ৪৯টি পূজোর আয়োজন হবে।

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ সিলেট জেলা ও মহানগর শাখা সূত্রে জানা গেছে, সার্বজনীন আয়োজনে সিলেটের কতোয়ালী থানা এলাকায় সার্বজনীন ২৯টি, পারিবারিক ১১টি, জালালাবাদ থানা এলাকায় ১৬টি, পারিবারিক ৪টি। এয়ারপোর্ট থানা এলাকায় ৩৮টি, পারিবারিক ১টি। শাহপরান থানা এলাকায় সার্বজনীন ৩৮টি, পারিবারিক ১টি। দক্ষিণ সুরমা উপজেলায় ১৩টি ও পারিবারিক ১টি। মোগলাবাজার এলাকায় ১৫টি। গোলাপগঞ্জ উপজেলায় সার্বজনীন ৫৬টি ও পারিবারিক ৩টি। বালাগঞ্জ উপজেলায় সার্বজনীন ৩০টি ও পারিবারিক ২টি। কানাইঘাট উপজেলায় সার্বজনীন ৩৫টি। জৈন্তাপূর উপজেলায় সার্বজনীন ২০টি, পারিবারিক ২টি। বিশ্বনাথ উপজেলায় সার্বজনীন ২৪টি ও পারিবারিক ২টি। গোয়াইনঘাট উপজেলায় সার্বজনীন ৩৬টি। জকিগঞ্জ উপজেলায় সার্বজনীন পূজা ৯৯টি। বিয়ানীবাজার উপজেলায় সার্বজনীন পূজা ৩৯টি, পারিবারিক ১৩টি। কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় সার্বজনীন ২৫টি, পারিবারিক ১টি। ও ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলায় সার্বজনীন ৩৭টি। ওসমানীনগর উপজেলায় সার্বজনীন পূজা ২৬টি ও পারিবারিক ৮টি পূজা অনুষ্ঠিত হবে।

সাধারণত আশ্বিন মাসের শুক্ল পক্ষের ষষ্ঠ থেকে দশম দিন পর্যন্ত শারদীয়া দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হয়। এই পাঁচটি দিন যথাক্রমে মহাষষ্ঠী, মহাসপ্তমী, মহাঅষ্টমী, মহানবমী ও বিজয়াদশমী নামে পরিচিত। আশ্বিন মাসের শুক্ল পক্ষটিকে বলা হয় দেবীপক্ষ। দেবীপক্ষের সূচনার অমাবশ্যাটির নাম মহালয়া। এই দিন হিন্দুরা তর্পণ করে তাঁদের পূর্বপুরুষদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করে।
দুর্গাপূজাকে সামনে রেখে সিলেট নগরের বিভিন্ন পূজামÐপগুলোতে ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রতিমা তৈরির কারিগরা। তার পাশাপাশি নগরীর মন্ডপগুলো বর্ণিল সাজে সাজানোর ব্যাপক প্রস্তুতি দেখা যায়। প্রতি বছর এই পূজাতে নগরে নতুন নতুন সাজ-সজ্জা দেখা চোখে পড়ে। সম্প্রীতির নগর সিলেটে হিন্দু হিন্দুধর্মালম্বীদের এই পূজাতে সকল ধর্মের মানুষকেই আনন্দ ভাগ করে নিতে দেখা যায়।

নগরীর যতরপুর এলাকায় ব্যক্তিগত উদ্যোগে প্রতিবছর মায়ের পূজোর আয়োজন করেন সিসিকের সাবেক কাউন্সিলর (সংরক্ষিত) দিবা রানী দে। প্রতিমার ছবি তুলতে গিয়ে কথা হয় দিবা রানীর সাথে। তিনি জানান,ভগ্ন হৃদয়ে গেলবার মায়ের চরণে ফুল দিয়েছি। সারাবছরের একটি মাত্র পূজোতে তিনি ভীতির পরিবেশ নয়, সম্প্রীতির সুবাতাস দেখতে চান। একইসাথে প্রত্যাশা করেন, প্রতিটি মন্ডবে যেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সজাগ দৃষ্টি থাকে।

পূজোর প্রস্তুতি প্রসঙ্গে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ সিলেট জেলার সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট রঞ্জন ঘোষ বলেন, সিলেট জেলায় শান্তিপূর্ণ পূজা আয়োজনের জন্য ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে।

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ সিলেট মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক রজত কান্তি গুপ্ত বলেন, নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা, প্রতিটি পূজান্ডপে স্বেচ্ছাসেবক নিয়োগ করা, জেনারেটর রাখা ও পরিদর্শন বই রাখার জন্য আমরা সবাইকে অনুরাধ করেছি। আশা রাখছি এবার সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টায় শারদ উৎসব আনন্দ-উল্লাসে পালিত হবে।

 

 




খবরটি এখনই ছড়িয়ে দিন

এই বিভাগের আরো সংবাদ







Copyright © Bangla News 24 NY. 2020