1. sparkleit.bd@gmail.com : K. A. Rahim Sablu : K. A. Rahim Sablu
  2. diponnews76@gmail.com : Debabrata Dipon : Debabrata Dipon
  3. admin@banglanews24ny.com : Mahmudur : Mahmudur Rahman
  4. mahmudbx@gmail.com : Monwar Chaudhury : Monwar Chaudhury
৩য় দফা বন্যায় বিপর্যস্থ সিলেটের ব্যবসা-বাণিজ্য
সোমবার, ০৪ জুলাই ২০২২, ১০:০৫ অপরাহ্ন




৩য় দফা বন্যায় বিপর্যস্থ সিলেটের ব্যবসা-বাণিজ্য

স্টাফ রিপোর্ট::
    আপডেট : ২৩ জুন ২০২২, ১১:১০:১৫ পূর্বাহ্ন

স্মরণকালের টানা তৃতীয়বারের বন্যায় বিপর্যস্থ সিলেটের ব্যবসা-বাণিজ্য। ব্যবসায়ীরা বলছেন-বন্যায় ক্ষতির পরিমান ১ হাজার কোটি টাকার কম হবে না। এর আগে করোনাকালীন সারাদেশের মতো সিলেটের ব্যবসায়ীরাও বিরাট আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হন। এরই মধ্যে রাত ৮টার পর দোকান বন্ধের সরকারি ঘোষণায় ঘুরে দাঁড়ানো নিয়ে এখন শঙ্কা প্রকাশ করছেন ব্যবসায়ীরা।

ব্যবসায়ীরা জানান, এবারের বন্যায় এমন কোন দোকান বাকী নেই যেখানে পানি উঠেনি। নিত্যপণ্য থেকে শুরু করে কাপড়, ইলেকট্রনিক, ফার্মেসী এমনকি বাদ যায়নি লাইব্রেরিও। ফলে নগরীর ব্যবসা-বাণিজ্য ও দোকানপাটের বিপুল পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে। জলাবদ্ধতার কবল থেকে রেহাই পায়নি নগরীর অন্যতম উচুস্থান চৌহাট্টা, আম্বরখানা, জিন্দাবাজার এলাকা। বাদ যায়নি বন্দরবাজার, সুরমা মার্কেট এলাকাও।

নগরীর জিন্দাবাজারস্থ আল হামরা শপিং সিটির সামনের রাস্তায় পানি জমলেও মার্কেটে পানি উঠেনি। এমনীভাবে জিন্দাবাজারস্থ বøু ওয়াটার শপিং সিটি, কাকলী শপিং সিটি, সিটি সেন্টার, মিলেনিয়ান, গ্যালারিয়া, ওয়েস্ট ওয়ার্ল্ডসহ কয়েকটি অভিজাত বিপনী বিতান ভালো থাকলেও নগরীর কোন এলাকার নিচতলার দোকান পানি উঠার বাকী ছিলনা। সবচেয়ে ক্ষতির সম্মূখীন হয়েছেন কালিঘাট, তালতলা, উপশহর, লালদিঘীরপাড় এলাকার ব্যবসায়ীরা। এখনো পানি জমে আছে কালিঘাটের রাস্তা, তালতলা রাস্তা, উপশহর রোডে। এসব এলাকায় এখনো স্বাভাবিক হচ্ছেনা ব্যবসা বাণিজ্য। ঈদুল আযহার আগেই ব্যবসায়ীদের এমন ধাক্কা কাটিয়ে উঠা খুবই কঠিন বলে মনে করছেন ব্যবসায়ীরা।

নগরীর হাসান মার্কেট ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও সিলেট মহানগর ব্যবসায়ী ঐক্য কল্যাণ পরিষদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার নিয়াজ মো: আজিজুল করিম বলেন, সাম্প্রতিক বন্যায় হাসান মার্কেটের ব্যবসা বাণিজ্যের বিপুল ক্ষতি হয়েছে। নগরীর প্রাণকেন্দ্র বন্দরবাজারের মতো জায়গায় অবস্থিত হাসান মার্কেটে হাটুপানি হবে, তা কেউ কল্পনাও করেনি। তাই কিছু বুঝে উঠার আগেই পানি উঠে যাওয়ায় হাসান মার্কেটে বিপুল ক্ষতি হয়েছে। যেসব ব্যবসায়ীর তাক নিচু ছিল এবং ফ্লোরে মালামাল রাখা ছিল সেসব ব্যবসায়ীদের ক্ষতি হয়েছে বেশি। হাসান মার্কেটের মতো দোকানগুলোতে বন্যার এমন ক্ষতি হলে নগরীর প্লাবিত অন্যান্য মার্কেটের ক্ষয়ক্ষতি সহজেই অনুমেয়।

সিলেট ব্যবসায়ী ঐক্য কল্যাণ পরিষদের সভাপতি ও আল হামরা শপিং সিটির ব্যবসায়ী আব্দুর রহমান রিপন বলেন, সিলেটের ব্যবসায়ীরা সঙ্কট নয়, মহাসঙ্কটে পড়েছে। করোনার ধাক্কা কাটিয়ে উঠতে না উঠতে বন্যার ধাক্কায় ব্যবসায়ীদের মাথা হাত। সবারই ক্ষতি হয়েছে। একদিকে ব্যবসার অন্যদিকে বাসা-বাড়ী ও আসবাবপত্রের। এখনো অনেকের বাসা-বাড়ী ও দোকানে পানি থাকায় এই মুহুর্তে বৈঠকে বসা সম্ভব হচ্ছেনা। বন্যায় কি পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে তা এখনই বলা যাচ্ছেনা। তবে আজ বৃহস্পতিবার রাতে আমরা সিলেটের ব্যবসায়ীদের নিয়ে বৈঠকে বসতে যাচ্ছি। সেই সভায় বন্যার ক্ষয়ক্ষতি নিয়ে আলোচনা হবে। নগরীর সকল ব্যবসায়ীরাই ক্ষতির সম্মূখীন হয়েছে।

সিলেট চেম্বার অব কমার্স ইন্ডাস্ট্রি’র সভাপতি তাহমিন আহমদ বলেন, বন্যায় সিলেটের ব্যবসা বাণিজ্যের অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে। কোন অবস্থাতেই তা ১ হাজার কোটি টাকার কম হবেনা। এই ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে অনেক সময় লাগবে। আমি নিজে বন্যার শুরু থেকে বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করেছি। নিজ চোখে দেখেছি। অনেক মিল ফ্যাক্টরী তলিয়ে গেছে, দামি দামি যন্ত্রপাতি বিনষ্ট হয়েছে। বিসিক শিল্পনগরী, কাজিরবাজার ও কালিঘাটের বেশী ক্ষতি হয়েছে। বিসিকের গুদামজাত পণ্যের পাশাপাশি কোটি টাকা দামের যন্ত্রপাতি বিনষ্ট হয়েছে।

 




খবরটি এখনই ছড়িয়ে দিন

এই বিভাগের আরো সংবাদ







Copyright © Bangla News 24 NY. 2020