1. sparkleit.bd@gmail.com : K. A. Rahim Sablu : K. A. Rahim Sablu
  2. banglanews24ny@gmail.com : App Bot : App Bot
  3. diponnews76@gmail.com : Debabrata Dipon : Debabrata Dipon
  4. admin@banglanews24ny.com : Mahmudur : Mahmudur Rahman
  5. islam_rooney@ymail.com : Ashraful Islam : Ashraful Islam
  6. rumelali10@gmail.com : Rumel : Rumel Ali
  7. Tipu.net@gmail.com : Ariful Islam : Ariful Islam
ঝুঁকিপূর্ণ ভবনেই কাজ চলছে হবিগঞ্জে মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রের
সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ০৬:৫৪ অপরাহ্ন




ঝুঁকিপূর্ণ ভবনেই কাজ চলছে হবিগঞ্জে মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রের

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি
    আপডেট : ১২ অক্টোবর ২০২১, ২:৫৫:০০ অপরাহ্ন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

হবিগঞ্জ জেলা শহরে প্রবেশে ২নং পুল এলাকায় জেলা মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র অবস্থিত। এ কেন্দ্রের ভবনটি ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। যেকোনো সময় এ ভবনটি ভেঙ্গে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। ঝুঁকির মধ্যেই দায়িত্বপ্রাপ্তরা মা ও শিশু এবং কিশোরীদের সেবা প্রদান করছেন। আর গত ৯ মাসে একেন্দ্রে নরমাল ডেলিভারী ৭৫৬টি ও সিজার হয়েছে ১০টি।

জানা গেছে ১৯৬৫ সালে ভবন নির্মাণ হওয়ার পর এ কেন্দ্রে সেবা শুরু হয়। শুরুতে ১০ শয্যায় মা ও শিশুর সেবা হয়ে আসছিল।

পরবর্তীতে তৃণমূল মানুষের সেবা বৃদ্ধির লক্ষে এ ভবন সম্প্রসারণ করা হয়। ১৯৯২ সালের ৩০ ডিসেম্বর উদ্বোধন করা হয় সম্প্রসারিত ভবনের। পরে ১৯৯৫ সাল থেকে নরমাল ডেলিভারীর পাশাপাশি সিজার সেবাও শুরু হয়। সেই সাথে নতুন করে যুক্ত হয় কিশোর-কিশোরীদের সেবা। বর্তমানে এ কেন্দ্র থেকে মা ও শিশুদের জন্য ১১ এবং পরিবার পরিকল্পনায় ৮ রকমের সেবা প্রদান করা হচ্ছে।

সরেজমিন গিয়ে দেখা গেছে- জেলা মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্র ভবনটি ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। ভবনের বিভিন্ন স্থানে ফাটল দেখা দিয়েছে। দেয়াল ও ছাদ থেকে প্লাস্টার খসে পড়া শুরু হয়েছে। ২য় তলার টয়লেটের ময়লা পানি নিচ তলার রোগীর রুমে এসে প্রবেশ করে। এতে দেখা দেয় দুর্গন্ধ। রাস্তা থেকে নিচু হওয়ায় বর্ষায় জলাবদ্ধতা দেখা দিচ্ছে। তবে এ অবস্থায়ও রোগীদেরকে যত্নসহকারে সেবা প্রদান করছে কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্তরা। কয়েকজন রোগীর সাথে কথা বলে জানা গেছে এ কেন্দ্র থেকে সেবা পাওয়া যাচ্ছে। তবে ভবনটি ঝুঁকিপূর্ণ হওয়ায় রোগীদের মাঝেও কিছুটা আতঙ্ক রয়েছে। দ্রুত এখানে নতুন একটি ভবন নির্মাণের জন্য তৃণমূল থেকে দাবি জানানো হয়েছে।

কেন্দ্রের মেডিক্যাল অফিসার ক্লিনিক ডা. আকলিমা তাহেরী জানান- চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত নরমাল ডেলিভারী ৭৫৬টি ও সিজার হয়েছে ১০টি। এছাড়া মা ও শিশু এবং কিশোরী সেবা প্রদান করা হচ্ছে। ভবনের এ অবস্থার কথা জেলা অফিসে জানানো হয়েছে।

হবিগঞ্জ পরিবার পরিকল্পনার উপ-পরিচালক মো. আব্দুর রহিম চৌধুরী বলেন- ভবনের সংস্কার ও নতুন ভবনের জন্য লিখিতভাবে স্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদফতরে জানানো হয়েছে। সংস্কারের বরাদ্দ দ্রুত আসার কথা। বরাদ্দ সাপেক্ষে পুরনো ভবন ভেঙ্গে নতুন ভবন করা হবে।




খবরটি এখনই ছড়িয়ে দিন

এই বিভাগের আরো সংবাদ







Copyright © Bangla News 24 NY. 2020