1. sparkleit.bd@gmail.com : K. A. Rahim Sablu : K. A. Rahim Sablu
  2. banglanews24ny@gmail.com : App Bot : App Bot
  3. diponnews76@gmail.com : Debabrata Dipon : Debabrata Dipon
  4. admin@banglanews24ny.com : Mahmudur : Mahmudur Rahman
  5. islam_rooney@ymail.com : Ashraful Islam : Ashraful Islam
  6. rumelali10@gmail.com : Rumel : Rumel Ali
  7. Tipu.net@gmail.com : Ariful Islam : Ariful Islam
৭ দিনে দেড় কোটি টাকা নিয়ে উধাও ‘সিরাক বাংলাদেশ’
সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ০৭:২৬ অপরাহ্ন




৭ দিনে দেড় কোটি টাকা নিয়ে উধাও ‘সিরাক বাংলাদেশ’

বাংলানিউজএনওয়াইডেস্ক:
    আপডেট : ১২ অক্টোবর ২০২১, ১:২০:৩৯ অপরাহ্ন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

৭ দিনে গ্রাহকের দেড় কোটি টাকা নিয়ে উধাও হয়ে গিয়েছে এনজিও ‘সিরাক বাংলাদেশ’।১০ শতক জমি বন্ধক রেখে মরিচ ও সবজি চাষ করে কোনো রকম সংসার চালাচ্ছিলেন দিনমজুর বাচ্চু শেখ। সিরাক বাংলাদেশ নামে একটি এনজিওর প্রলোভনে পড়ে বন্ধক রাখা জমিটিও আবারও অন্যের কাছে বন্ধক রাখেন। সেই টাকা এনজিও কর্মীদের কাছে জামানত রাখেন মোটা অংকের ঋণের আশায়। কিন্তু তাদের সেই স্বপ্ন স্বপ্নই থেকে গেল। মাত্র সাত দিনের ব্যবধানে জানতে পারেন, এনজিও কর্মীরা তাদের গ্রামের আরও ১৫ জনের ভর্তি ও জামানতের টাকা নিয়ে পালিয়ে গেছেন। শুধু তাই নয়, উপজেলার কয়েকটি গ্রাম থেকে হাতিয়ে নিয়েছেন মোটা অংকের টাকা।

ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলার শৈলকুপা পৌরসভার সিটিকলেজ রোডের পাশে সিরাক বাংলাদেশ নামে এনজিওটির অফিস। সংস্থাটি শৈলকুপার বিভিন্ন গ্রামের দিনমজুর ও অসচ্ছল পরিবারকে মোটা অংকের ঋণ দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে প্রায় দেড় কোটি টাকা নিয়ে পালিয়ে গেছে।জানা গেছে, সিরাক বাংলাদেশ ২৫ সেপ্টেম্বর তাদের অফিসের কার্যক্রম শুরু করে। ১ অক্টোবর ঋণ দেওয়ার ঘোষণা দিয়ে টাকা আদায় শুরু করে। কিন্তু নির্ধারিত দিনে গ্রাহক অফিসে গিয়ে দেখতে পান গেটে তালা ঝুলছে। গ্রাহকরা বলছেন, সাজানো-গোছানো অফিস আর সাইনবোর্ড দেখে তারা টাকা জামানত রেখেছেন। সহজ শর্তে ঋণের আশায় কেউ কেউ পাঁচ হাজার থেকে শুরু করে ২০ হাজার টাকা পর্যন্ত জামানত রেখেছেন। এখন টাকা ফেরত পাওয়ার আশায় প্রতিদিন তালাবদ্ধ অফিসের সামনে গিয়ে ভিড় করছেন।শৈলকুপা পৌরসভার সিটিকলেজ রোডের গ্রিস প্রবাসী আকবর হোসেনের বাড়ি ভাড়া নেয় এনজিও নামধারী একদল প্রতারক। কবিরপুর এলাকার সিটি কলেজ সড়কে একটি একতলা বাড়ির মূল ফটকের সামনে সাইনবোর্ড। তবে ফটকটি তালাবদ্ধ। সাইনবোর্ডটিতে লেখা আছে, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক অনুমোদিত সিরাক বাংলাদেশ, ক্ষুদ্র ঋণ দান ও কুটির শিল্প প্রকল্প’। অফিসের সামনে দুই একজন আসা-যাওয়া করছেন। তারা ঋণ পাওয়ার আশায় টাকা জামানত রেখে এখন ঘুরছেন। স্থানীয়রা জানায়, মাসিক চার হাজার টাকায় বাড়িটি ভাড়া নেয় তারা। এক বছরের টাকা অগ্রিম দেওয়ার কথা ছিল। গত মাসের ২৫ সেপ্টেম্বর বাসার গেটে সিরাক বাংলাদেশ নামে একটি সাইনবোর্ড লাগায় তারা। ১ অক্টোবর তাদের ঋণ দেওয়ার কার্যক্রম উদ্বোধন করার কথা ছিল। এক সপ্তাহে তারা কয়েকশ মানুষের কাছ থেকে ক্ষুদ্র ঋণ দেওয়ার নাম করে ৫-২০ হাজার টাকা পর্যন্ত হাতিয়ে নিয়েছে। এ ঘটনায় শৈলকুপা থানায় এনজিও কর্মী নাজমুলকে প্রধান আসামি করে উপজেলার হড়রা গ্রামের প্রতারণার শিকার রুহুল আমিন মামলা দায়ের করেছেন।

 

সিরাক বাংলাদেশের নির্বাহী পরিচালক এস এম সৈকত জানিয়েছেন, তাদের সংস্থার ঝিনাইদহ জেলাতে কোনো শাখা নেই।এ ছাড়া তারা ঋণদান কর্মসূচি বাস্তবায়নও করেন না। তাদের সংস্থার নাম ব্যবহার করে একটি চক্র প্রতারণা করছে বলে ক্ষতিগ্রস্তদের মাধ্যমে তিনিও জানতে পেরেছেন। তিনি আরও জানান, প্রতারক চক্র এমআরএ নিবন্ধন সনদ নম্বর ব্যবহার করেছে সাইনবোর্ডে, যা তাদের নয়। তাদের সংস্থা এমআরএ নিবন্ধিত নয়। তিনি দাবি করেন, একটি প্রতারক চক্র তাদের সংস্থার নাম ও লোগো ব্যবহার করে এ প্রতারণা করেছেন। এ নিয়ে তারা মিরপুরের পল্লবী থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছেন। ঝিনাইদহ জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো. আব্দুল্লাহ আল সামী বলেন, সিরাক বাংলাদেশ নামে একটি এনজিও শৈলকুপার বিভিন্ন গ্রামে ঋণ দেওয়ার নাম করে গরিব ও দিনমজুর শ্রেণির মানুষদের কাছ থেকে জামানতের নামে টাকা নিয়েছেন। তারা ওই এলাকায় এক সপ্তাহের জন্য একটি বাড়ি ভাড়া নিয়ে এই ঘটনা ঘটিয়েছে। এলাকার লোকজন প্রতারিত হওয়ার পর অভিযোগ করেন। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, তারা সেখান থেকে তাদের অফিস গুটিয়ে নিয়ে চলে গেছে। পরে আমরা জানতে পারি, সিরাক বাংলাদেশ নামে যে এনজিওটির পরিচয় পাওয়া গেছে সেটি আসলে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা হিসেবে ময়মনসিংহ জেলায় নিবন্ধিত আছে। যার ঝিনাইদহ জেলার কোথাও কাজকর্ম করার কোনো বৈধতা নেই। একটি অসাধু চক্র এই নাম ব্যবহার করে প্রতারণা করেছে। যদি কোনো এনজিও বা সংস্থার ঝিনাইদহে কাজকর্ম পরিচালনা করতে হয় তাহলে অবশ্যই তাদের ঝিনাইদহ জেলা সমাজসেবা কার্যলয় থেকে অনুমতি নিয়ে কাজ করতে হবে।

 

বিএ/১২ অক্টোবর




খবরটি এখনই ছড়িয়ে দিন

এই বিভাগের আরো সংবাদ







Copyright © Bangla News 24 NY. 2020