1. sparkleit.bd@gmail.com : K. A. Rahim Sablu : K. A. Rahim Sablu
  2. banglanews24ny@gmail.com : App Bot : App Bot
  3. diponnews76@gmail.com : Debabrata Dipon : Debabrata Dipon
  4. admin@banglanews24ny.com : Mahmudur : Mahmudur Rahman
  5. islam_rooney@ymail.com : Ashraful Islam : Ashraful Islam
  6. rumelali10@gmail.com : Rumel : Rumel Ali
  7. Tipu.net@gmail.com : Ariful Islam : Ariful Islam
জিতলে ফাইনাল, হারলে বিদায়
সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ০৬:৫৬ অপরাহ্ন




জিতলে ফাইনাল, হারলে বিদায়

স্পোর্টস ডেস্ক
    আপডেট : ১৩ অক্টোবর ২০২১, ৪:২১:১৭ অপরাহ্ন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে ‘জিতলে ফাইনাল, হারলে বিদায়’ এমন সমীকরণ সামনে রেখে আজ নেপালের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। মালদ্বীপ জাতীয় স্টেডিয়ামে ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় বিকাল ৫টায়। প্রথমবারের মতো সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে উঠতে নেপালের দরকার ড্র। এই ম্যাচে জয় ছাড়া বিকল্প নেই বাংলাদেশের।

গত কয়েকটি সাফের শেষ ম্যাচের সমীকরণ মেলাতে পারেনি বাংলাদেশ। আবার প্রতিপক্ষ নেপালের বিপক্ষে সর্বশেষ লড়াইয়ের স্মৃতিও সুখকর নয়। গত মার্চে নেপালে অনুষ্ঠেয় ত্রিদেশীয় টুর্নামেন্টে বাংলাদেশ স্বাগতিকদের কাছে হেরে রানার্স আপ হয়েছিল। গতকাল নেপালের বিপক্ষে ম্যাচ-পূর্ববর্তী সংবাদ সম্মেলনে আগের প্রসঙ্গগুলো উঠে আসছিল বারবার। অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়া এ নিয়ে বলেন, ‘আগে কী হয়েছিল সেটা আর মনে করতে চাই না। আমরা সামনে এগিয়ে যেতে চাই।’

সামনে এগিয়ে যাওয়ার পথে জামালদের সামনে বাধা নেপাল। হিমালয় কন্যাদের হারাতে পারলে বাংলাদেশ ১৬ বছর পর ফাইনাল খেলবে। অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়া আশা দেখালেন দেশবাসীকে, ‘আমাদের এই দলটা ভালো। লিগের সেরা খেলোয়াড়রা এই দলে রয়েছে। আমরা ইতিহাস তৈরি করতে পারি।’

অধিনায়ক ইতিহাসের কথা বললেও আসলে ফাইনাল খেললে বাংলাদেশের ইতিহাস হবে না। বাংলাদেশ সাফের ফাইনাল এখন পর্যন্ত তিনবার খেলেছে। আজ নেপালের বিপক্ষে জিতলেই বাংলাদেশ ফাইনাল খেলতে পারবে। ফাইনাল খেলতে হলে প্রয়োজন গোলের। বাংলাদেশের সমস্যা স্কোরিং।

আমাদের এই দলটা ভালো। লিগের সেরা খেলোয়াড়রা এই দলে রয়েছে। আমরা ইতিহাস তৈরি করতে পারি।
—জামাল ভূঁইয়া, অধিনায়ক, বাংলাদেশ

কাঙ্ক্ষিত গোল কে করবে এই বিষয়ে অধিনায়ক বলেন, ‘গোলের সংকট বা স্কোরিং নিয়ে সমস্যা এটা মিডিয়ার কথা। আমি কোনো সংকট দেখি না। ১১ জনের মধ্যে যে কেউ গোল করতে পারে। বাংলাদেশ দলের হয়ে যে কেউ গোল করলেই হয়।’ আজকের ম্যাচে সমর্থকদের কাছে বাড়তি সমর্থন চেয়েছেন অধিনায়ক, ‘মালদ্বীপে আমরা অনেক সমর্থন পাচ্ছি। আশা করি আগামী ম্যাচেও এর ধারাবাহিকতা থাকবে। মালদ্বীপ ম্যাচ খুব কম টিকিট পেয়েছিল বাংলাদেশিরা। এই ম্যাচে অনেকে আসবে, সবাই সমর্থন দেবে।’

অন্য দিকে আজকের ম্যাচে চাপ দেখছেন না মিডফিল্ডার রাকিব হোসেন ও টিম ম্যানেজার সত্যজিৎ দাস রুপু। দুজনেরই দাবি, বাংলাদেশ নয়, বরং চাপে আছে নেপালই। তিন ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে নেপাল। ৪ পয়েন্ট নিয়ে চতুর্থ স্থানে বাংলাদেশ। ২০১৮ সালের সাফে গ্রুপ পর্বে বাংলাদেশ ছিটকে গিয়েছিল নেপালের বিপক্ষে হেরে। গ্রুপ পেরুতে হলে সেই ম্যাচে জয়ের বাধ্যবাধকতা ছিল দলের। কিন্তু চাপে ভেঙে পড়ে দল হেরে যায় ২-০ গোলে। এবারও একই পরিস্থিতির মুখে বাংলাদেশ। কার্ডের কারণে মালদ্বীপের বিপক্ষে হেরে যাওয়া ম্যাচে খেলতে পারেননি রাকিব। দুই দিন বিশ্রামের পর মালের হেনভেইরু ট্রেনিং পিচে অনুশীলন সেরেছে দল। রাকিবও ফিরেছেন অনুশীলনে। ২২ বছর বয়সি এই মিডফিল্ডার আশাবাদী মালদ্বীপ ম্যাচের ব্যর্থতা পেছনে ফেলার ব্যাপারে।

‘মালদ্বীপ ম্যাচে সবাই চেষ্টা করেছিল কিন্তু হয়নি। আসলে সবাই ক্লান্ত ছিল। টানা তিনটা ম্যাচ খেলার কারণে সবাই নিজেদের সেরাটা দিতে পারেনি। আমাদের সবার ইচ্ছা সামনের ম্যাচে ভালো কিছু করার সর্বোচ্চটা দেওয়ার। আসলে আমরা সবাই খেলি, সবাই চেষ্টা করি গোল করার, কিন্তু সবার হয় না। সামনের ম্যাচ নিয়ে কোচ আমাদের যে নির্দেশনা দিয়েছেন, সে অনুযায়ী যদি খেলতে পারি, তাহলে ভালো কিছু হবে।’ ‘এ ম্যাচে আমরা চাপে নেই। ওরাই (নেপাল) চাপে থাকবে। ওদের যেহেতু ৬ পয়েন্ট, আমাদের ৪ পয়েন্ট, আমরা খেলব জয়ের জন্য। (কোন কৌশলে খেলবে দল) এটা এখনই বলা যাবে না। তবে সবাই চেষ্টা করছি অ্যাটাকিং খেলার জন্য।’

নেপালের বিপক্ষে ম্যাচটিকে সুবর্ণ সুযোগ হিসেবে দেখছেন রুপু।




খবরটি এখনই ছড়িয়ে দিন

এই বিভাগের আরো সংবাদ







Copyright © Bangla News 24 NY. 2020