1. sparkleit.bd@gmail.com : K. A. Rahim Sablu : K. A. Rahim Sablu
  2. banglanews24ny@gmail.com : App Bot : App Bot
  3. diponnews76@gmail.com : Debabrata Dipon : Debabrata Dipon
  4. admin@banglanews24ny.com : Mahmudur : Mahmudur Rahman
  5. islam_rooney@ymail.com : Ashraful Islam : Ashraful Islam
  6. rumelali10@gmail.com : Rumel : Rumel Ali
  7. Tipu.net@gmail.com : Ariful Islam : Ariful Islam
ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি : পদত্যাগপত্র জমা দিলেন আইন বিভাগের প্রধান
রবিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ১০:৫৭ পূর্বাহ্ন




ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি : পদত্যাগপত্র জমা দিলেন আইন বিভাগের প্রধান

স্টাফ রিপোর্ট
    আপডেট : ২৪ নভেম্বর ২০২১, ৭:২২:৪৫ অপরাহ্ন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

চলমান আন্দোলন শনিবার পর্যন্ত স্থগিত করেছেন সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। কর্তৃপক্ষের আশ্বাসে বিশ্ববিদ্যালয় গেটে তালা ঝুলানোর মতো কঠোর কর্মসূচি থেকে সরে এসেছেন তারা। মঙ্গলবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের আগামী শনিবারের মধ্যে সিদ্ধান্ত জানানোর আশ্বাস প্রদান করেছেন। এর প্রেক্ষিতে আন্দোলন স্থগিত করেন শিক্ষার্থীরা।

জানা গেছে, কর্তৃপক্ষের আইন বহির্ভুত কর্মকান্ড ও গাফিলতিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের ১৪৮ জন শিক্ষার্থী গত বার কাউন্সিল পরীক্ষায় অংশ নিতে পারেনি। আগামীতে পারবে কিনা সেই আশঙ্কায় নিয়ে ভবিষ্যৎ অনিশ্চয়তায় পড়েছে তারা। অনিশ্চয়তা দুর করতে গত বৃহস্পতিবার দুপুরে ক্যাম্পাসে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেন আইন বিভাগের ৪ সেমিস্টারের শিক্ষার্থীরা। কর্মসূচি শেষে মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে তালা ঝুলিয়ে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীরা।

শিক্ষার্থীরা জানান, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন ২০১৪ সালে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে প্রতি সেমিস্টারে ৫০ জনের অধিক শিক্ষার্থী ভর্তি না করার নোটিশ জারি করে। কিন্তু এমন নির্দেশনা না মেনে সিলেট ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি কর্তৃপক্ষ আইন বিভাগের ২১, ২২, ২৩ ও ২৪ তম ব্যাচে ৫০ জনের অধিক শিক্ষার্থী ভর্তি করেন। এতে নির্দিষ্ট সময়ে পড়াশোনা শেষ করেও ৪ ব্যাচের ৫০ জনের অধিক ভর্তি হওয়া ১৪৮ জন শিক্ষার্থীর আবেদন জমা নেয়নি বার কাউন্সিল কর্তৃপক্ষ।

এ নিয়ে রিট হলে গত ১৯ সেপ্টেম্বর উচ্চ আদালত বিশ্ববিদ্যালয়কে ২৯ লাখ ৬০ হাজার টাকা জরিমানা করে আগামী ২ জানুয়ারির মধ্যে তা জমা দেওয়ার আদেশ দেন। তবে জরিমানার টাকা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ পরিশোধের কোনো উদ্যোগ না নেওয়ার অভিযোগে আন্দোলনের ডাক দেন ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীরা।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থী বলেন, মঙ্গলবার সকাল থেকে ৩ টি সেমিস্টারের প্রায় অর্ধশত শিক্ষার্থী বিশ্ববিদ্যালয়ে অবস্থান নেন। পরবর্তী সময়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যসহ অন্যরা জানিয়েছেন, উচ্চ আদালতের আদেশের বিপরীতে আপিল করা হয়েছে। আগামী ১২ ডিসেম্বর আপিলের শুনানি অনুষ্ঠিত হবে। শুনানি শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষে রায় না এলে ১৫ ডিসেম্বরের মধ্যে উচ্চ আদালতের আদেশের পরিপ্রেক্ষিতে জরিমানার টাকা পরিশোধের উদ্যোগ নেওয়া হবে। আগামী শনিবার বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এই সিদ্ধান্ত লিখিত আকারে জানানোর কথা দিয়েছেন। ফলে তারা আন্দোলন স্থগিত করেছেন।

তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের প্রধান হুমায়ূন কবির বলেন, ‘আমরা উচ্চ আদালতের আদেশের বিপরীতে আপিল করেছি। সিদ্ধান্ত যদি আমাদের পক্ষে আসে ভালো। না এলে জরিমানার ওই টাকা কীভাবে পরিশোধ করা হবে, সে ব্যাপারে আগামী শনিবার আমরা সিদ্ধান্ত নেব। সেটি শিক্ষার্থীদের জানানো হবে।’

এদিকে আইন বিভাগের প্রধানের পদ থেকে অব্যাহতি চেয়ে পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন হুমায়ূন কবীর। গত শনিবার তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রারের কাছে পদত্যাগপত্রটি জমা দেন। হুমায়ূন কবীর বলেন, তিনি বিভাগীয় প্রধানের দায়িত্ব নেওয়ার আগে ইউজিসির নির্দেশনা অমান্য করে বিভাগে ৫০ জনের অধিক শিক্ষার্থী ভর্তি করা হয়েছিল। ফলে শিক্ষার্থীরা যে সমস্যায় পড়েছেন, সেটি নিরসনে বিভাগীয় প্রধান হিসেবে তিনি চেষ্টা করেছেন। কিন্তু তার ভূমিকা যথাযথ নয় বলে শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করছেন। অনেক সময় বিভাগীয় প্রধানের দায়িত্বে থাকায় অনেক কিছু করতে পারেননি। এর জন্য তিনি পদটি থেকে অব্যাহতি চেয়েছেন। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ এখনো কিছু জানায়নি।




খবরটি এখনই ছড়িয়ে দিন

এই বিভাগের আরো সংবাদ







Copyright © Bangla News 24 NY. 2020