1. sparkleit.bd@gmail.com : K. A. Rahim Sablu : K. A. Rahim Sablu
  2. banglanews24ny@gmail.com : App Bot : App Bot
  3. diponnews76@gmail.com : Debabrata Dipon : Debabrata Dipon
  4. admin@banglanews24ny.com : Mahmudur : Mahmudur Rahman
  5. islam_rooney@ymail.com : Ashraful Islam : Ashraful Islam
  6. rumelali10@gmail.com : Rumel : Rumel Ali
  7. Tipu.net@gmail.com : Ariful Islam : Ariful Islam
সনাতন ধর্ম গ্রহণ করলেন ভারতের শিয়া ওয়াকফ বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান
বুধবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২২, ০২:১১ পূর্বাহ্ন




সনাতন ধর্ম গ্রহণ করলেন ভারতের শিয়া ওয়াকফ বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান

বাংলানিউজএনওয়াই ডেস্ক::
    আপডেট : ০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ২:৫৭:১৫ অপরাহ্ন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ভারতের উত্তর প্রদেশের শিয়া ওয়াকফ বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান ওয়াসিম রিজভি সনাতন ধর্ম গ্রহণ করেছেন।  সোমবার উত্তর প্রদেশের গাজিয়াবাদের দশনা দেবির মন্দিরে আনুষ্ঠানিকভাবে তিনি ধর্মান্তরিত হন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন দশনা দেবি মন্দিরের প্রধান পুরোহিত নরসিংহনন্দ সরস্বতী।

এ সময় তিনি ধর্মান্তরিত ওয়াসিম রিজভির নতুন নাম দেন জিতেন্দ্র নারায়ণ সিং ত্যাগী। খবর হিন্দুস্তান টাইমসের।

ধর্ম ত্যাগের করার পর রিজভি বলেন, ইসলাম থেকে আমাকে বিতাড়িত করা হয়েছিল। রোজই মাথার দাম বেড়ে যাচ্ছিল। ফলে যে কোনও ধর্মই আমি গ্রহণ করতে পারি। সনাতন ধর্ম গ্রহণ করলাম কারণ সনাতন ধর্মই হল দুনিয়ার সবচেয়ে পুরোন ধর্ম। এই ধর্মের প্রতি আমার শ্রদ্ধা রয়েছে। কারণ এই ধর্ম মানবিকতা শেখায়।

কপালে চন্দনের তিলক দেওয়া নতুন নামে পরিচিত জিতেন্দ্র নারায়ণ সিং ত্যাগীকে পাশে বসিয়ে দশনা দেবী মন্দিরের প্রধান পুরোহিত নরসিংহনন্দ সরস্বতী সবাইকে উদ্দেশ করে বলেন, তাকে যেন কেউ তার পুরনো নামে না ডাকে।

ত্যাগী বলেন, আমার নতুন নামে অভ্যস্ত হতে মানুষের একটু সময় লাগবে। কিন্তু একটা সময় সবাই আমাকে জিতেন্দ্র নারায়ণ সিং ত্যাগী নামেই ডাকবে।

কুরআন সন্ত্রাসবাদের উৎস, বাবরি মসজিদসহ ভারতের বেশ কয়েকটি মসজিদ হিন্দুদের হাতে তুলে দেওয়ার দাবি জানিয়ে আগে থেকেই বিতর্কিত ওয়াসিম রিজভী।

পবিত্র কুরআন শরিফের ২৬টি আয়াত পরিবর্তনের আবেদন জানিয়ে দেশটির সুপ্রিমকোর্টে রিটও করেছিলেন তিনি। এ ঘটনায় দেশটির শিয়া ও সুন্নি সবমতের মানুষ বিতর্কিত ওয়াসিম রিজভীর গ্রেফতার দাবি করেছিলেন।

রিজভি তার আবেদনে বলেছিলেন, কুরআনের ২৬টি আয়াত সহিংসতার প্রচার করছে এবং সেগুলো কুরআনের মূল সংস্করণের অংশ নয়। পরবর্তীতে এসব আয়াত কুরআনে সংযোজন করা হয়েছে। যে কারণে পবিত্র কুরআন থেকে আয়াতগুলো মুছে ফেলা উচিত।

তার এমন বিতর্কিত মন্তব্যে ভারতছাড়াও বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মুসলিমরা নিন্দা জানিয়েছিলেন।

এবিএ/৭ ডিসেম্বর




খবরটি এখনই ছড়িয়ে দিন

এই বিভাগের আরো সংবাদ







Copyright © Bangla News 24 NY. 2020